Entertainment

৪০ পেরিয়ে তবুও কেন অবিবাহিত রয়েছেন রাইমা? মুখ খুললেন অভিনেত্রী

চল্লিশ বছরে এসেও রাইমা সেন কেন বিয়ে করেননি এ নিয়ে টলিপাড়ার বেশ আলোচনা হয়। তবে রাইমা সেন একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, বিয়েই যে জীবনের মূল লক্ষ্য তা একেবারেই নয়। বিয়ে করা ছাড়াও আরো অনেক কিছু আছে । তিনি সবসময় কাজের মধ্যে ডুবে থাকতে ভালোবাসেন।

মহানায়িকা সুচিত্রা সেনের নাতনি রাইমা সেন (Raima Sen)। রাইমা সেন এখন চল্লিশ পেরিয়েছেন।‌ পরিবারের সবাই অভিনয় জগতে আছেন। সেই ধারা মেনেই তিনিও অভিনয় জগতে আসেন। তার বোন রিয়া সেন। তিনিও সিনেমা জগতে আসেন। তবে তিনি বিয়ে করে সংসার করছেন তবে রাইমা সেন বিয়ে করতে নারাজ।

৪০ পেরিয়ে তবুও কেন অবিবাহিত রয়েছেন রাইমা? মুখ খুললেন অভিনেত্রী

চল্লিশ বছরে এসেও রাইমা সেন কেন বিয়ে করেননি এ নিয়ে টলিপাড়ার বেশ আলোচনা হয়। তবে রাইমা সেন একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, বিয়েই যে জীবনের মূল লক্ষ্য তা একেবারেই নয়। বিয়ে করা ছাড়াও আরো অনেক কিছু আছে । তিনি সবসময় কাজের মধ্যে ডুবে থাকতে ভালোবাসেন।

৪০ পেরিয়ে তবুও কেন অবিবাহিত রয়েছেন রাইমা? মুখ খুললেন অভিনেত্রী

তার কোনো কাজের জবাব তার বাবা মা ছাড়া কাউকে জবাবদিহি করতে হয় না। তিনি সবসময় তার কেরিয়ারের কথা ভাবতে থাকেন। তবে তিনি বিয়ে করেননি বলে যে তিনি সুখে নেই এমনটাও নয়। তিনি তার কেরিয়ার নিয়ে ভাবতে চান আপাতত। আগামী কয়েক বছরেও তার কোনো বিয়ের পরিকল্পনা নেই।

তবে তিনি কি কখনো বিয়ে করবেন না!! তিনি জোর দিয়ে বলেননি যে তিনি কখনো বিয়ে করবেন না। তিনি যদি এমন কাউকে খুঁজে পায় যার প্রেমে তিনি পাগল হয়ে যাবেন একেবারে তবে তার সাথে তিনি বিয়ের কথা ভাববেন। না হলে তিনি এই জীবনটাই বেঁছে নেবেন।

পরিচিত সবাই একটা নির্দিষ্ট বয়সের পর বিয়ে করা নিয়ে কথা বলে‌ ছেলে মেয়ে উভয়কেই। আর কোনো পরিচিত মুখ হলে তো পরিচিতদের সাথে বাইরের লোকেরাও তাদের বিয়ে নিয়ে নানান কথা বলে। তবে রাইমা সেনের মতে তিনি অতো ওসব নিয়ে ভাবেন না। লোকে কে কি বলল।

রাইমা সেন নিজের মত করে নিজের জীবন কাটাতে চান। বাইরের লোক কে কি বলল তা নিয়ে বিন্দু মাত্র মাথা ঘামান না। তিনি তার জীবন বরাবরই ব্যাক্তিগত রেখে এসেছেন। ভবিষ্যতেও সেটাই রাখতে চান। তবে টলিপাড়ার শোনা যায় যে তার সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পর তিনি এসব বিয়ে সম্পর্ক এসব নিয়ে কথা বলতে পছন্দ করেন না।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button