কবে থেকে চলবে লোকাল ট্রেন? স্পষ্ট করল পূর্ব রেলওয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদন: বেশ কিছুদিন লোকাল ট্রেন পরিষেবা বন্ধ হয়ে রয়েছ । যারা প্রত্যেক দিন লোকাল ট্রেনে যাতায়াত করতেন তাদেরকে এখন বহু সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। অফিস খুললেও গণপরিবহনে এখনো পর্যন্ত বন্ধ, কয়েকটি স্পেশাল কাজের সঙ্গে যুক্ত মানুষ যেতে পারেন স্টাফ স্পেশাল ট্রেনে করে। ফলে অন্যান্য কাজের সঙ্গে যুক্ত মানুষরা এখন বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছে। রেল অবরোধ নিয়ে শিয়ালদা দক্ষিণ শাখায় বিক্ষোভের খর উঠেছে। সাধারণ মানুষের দাবি, তাদেরকে স্টাফ স্পেশাল ট্রেনে উঠতে দিতে হবে।

পুলিশকে লক্ষ্য করে ছোড়া হল ইট এবং পুলিশের গাড়ি ভাঙচুরও করা হল মল্লিকপুর স্টেশনে। বারুইপুর স্টেশনের ছবিটাও সকাল থেকে ঠিক একই। সোমবার সকালে যখন সোনারপুর স্টেশনে ডায়মন্ড হারবার লোকাল এসে পৌঁছায়, তখন অনেক নিত্যযাত্রী লোকাল ট্রেনে ওঠার চেষ্টা করেন। কিন্তু রেল পুলিশ তাদের বাধা দেয়। এরপর থেকেই ট্রেনের সামনে বসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তারা। তাদের দাবি, ” দিদির কাছে অনুরোধ ট্রেন চালানো হলে সব চালানো হোক, না হলে কোন ট্রেন চালানো হবে না। এভাবে কিছু লোক যেতে পারছেন কিছু পাচ্ছেন না। এভাবে কতদিন পেটে ভাত যোগাবো?”

সোনারপুরের বাসিন্দারা সোনারপুর স্টেশনে বুধবার এবং বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। গতকাল মহিলারাই ছিলেন এই বিক্ষোভের পুরোধা। তাদের দাবি , “লোকাল ট্রেন চালাতে হলে প্রত্যেক ট্রেন চলুক না হলে কোন ট্রেন চলবে না।” যাত্রীরা ঘন্টাখানেক ট্রেন অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান, এরপর রেলপুলিশ সোনারপুর স্টেশনে এসে পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনেন। কিন্তু মল্লিকপুরের বাসিন্দারা আবার মল্লিকপুর স্টেশনে ট্রেন অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায়। সেখানে তারা শুধুমাত্র বিক্ষোভই নয়, তাছাড়াও সরাসরি রেল পুলিশের দিকে ইটপাটকেল ছোড়া শুরু করলেন।

পূর্ব রেলওয়ে কর্তারা এই ট্রেন অবরোধ নিয়ে চিন্তা প্রকাশ করে বলেছেন, লোকাল ট্রেন কবে চালু হবে সেই ব্যাপারে তাদের কাছে কোন নির্দিষ্ট তথ্য নেই। লোকাল ট্রেন চালানোর সমস্ত অনুমতি দেবে রাজ্য সরকার। রেলের পক্ষ থেকে এর আগে রাজ্য সরকারকে চিঠি পাঠানো হয়েছিল। ওই চিঠিতে লেখা ছিল, লোকাল ট্রেন চালাতে প্রস্তুত পূর্ব রেলওয়ে কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে লোকাল ট্রেন চালানোর অনুমতি দেয়নি রাজ্য সরকার। কিন্তু স্টাফ স্পেশাল ট্রেনের সংখ্যা বেড়ে গেছে। কয়েকজন কাজে যেতে পারছেন আর কয়েকজন পারছেন না, এই নিয়েই মূলত নিত্যযাত্রীদের মধ্যে ক্ষোভ জমছে। পূর্ব রেলওয়ে জানিয়েছে, রাজ্য সরকার যখনই অনুমতি দেবে তখন থেকেই তারা ট্রেন চালাতে প্রস্তুত। তারা প্রত্যেকদিন বিধি মেনে ট্রেন স্যানিটাইজ করছেন।

Back to top button