লোকাল ট্রেন পরিষেবা কবে স্বাভাবিক হবে? কি জানালো রেলমন্ত্রক

নিজস্ব প্রতিবেদন: বেশিরভাগ মানুষেরই রুজি–রুটি নির্ভর করে রেল যাত্রার ওপর । রাজ্যের বেশিরভাগ মানুষ রেল পথেই নিজের কর্মক্ষেত্রে পৌঁছে যায়। সুতরাং রেল পরিষেবা বন্ধ থাকায় এখন অনেকেরই সমস্যা হচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের জারি করা লকডাউনের সময়সীমা ১৫ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ‘রাজ্যে জারি করা বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল করে কিছু কিছু খাতে আংশিক ছাড় দেওয়া হচ্ছে।’

সম্প্রতি রাজ্যের অনুরোধের পর স্পেশাল স্টাফ ট্রেনে উঠতে পারবেন পোস্ট অফিস ও ব্যাঙ্ককর্মীরা। এই সিদ্ধান্ত জানিয়েছে পূর্ব রেল। এই রেল পরিষেবা বন্ধ রাখার আবেদন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। করোনাভাইরাসের জেরে রাজ্যে রেল পরিষেবা বন্ধ থাকলেও এখন ধীরে ধীরে বিধিনিষেধ শিথিল হচ্ছে।

এই পরিস্থিতি পরিবর্তিত হতে পারে যদি মুখ্যমন্ত্রী রেল চালু করার অনুমতি দেন। একজন প্রশ্ন উঠছে , রেল ব্যাবস্থা ফের চালু করার মতো পরিস্থিতি কি এখনও তৈরি হয়েছে?‌ তবে এখনও রেল পরিষেবার বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত ঘোষণা না করায় উদগ্রীব হয়ে পড়েছেন অনেকে। তাঁদের প্রশ্ন, কবে আবার স্বাভাবিক হবে রেল পরিষেবা?

এদিন রেল বোর্ডের চেয়ারম্যান সুনীত শর্মা জানিয়েছেন, ‘রেল চলাচল বন্ধ রাখার আর্জি জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাই বন্ধ রয়েছে রেল পরিষেবা। তবে আমাদের কাছে রেলের কর্মী সংখ্যা এবং বগী সংখ্যাও পর্যাপ্ত পরিমাণে রয়েছে। আমরা পুরোপুরি তৈরি আছি। রাজ্য সরকার যেদিন বলবে, সেদিন থেকেই আমার পরিষেবা দেওয়া শুরু করব।’‌

Back to top button