“কেন্দ্রের দেওয়া ৪০০ কোটি টাকা কী করল রাজ্য!” মমতা সরকারকে প্রশ্ন শুভেন্দুর

নিজস্ব প্রতিবেদনগত বছর আমফানে রাজ্যে ত্রাণের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করেছিল বিজেপি এবং বাকি বিরোধী দলগুলো। এবার যশ নিয়েও ফের দুর্নীতির আশঙ্কা প্রকাশ করছে বিজেপি। রাজ্যের বিরোধী দলের নেতা শুভেন্দু অধিকারী নিজের এলাকা নন্দীগ্রামে পর্যবেক্ষণে গিয়ে তিনি অভিযোগ করেন। তিনি জানান যে, রাজ্য সরকার যশ মোকাবিলায় সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। ইয়াস মোকাবিলার জন্য কেন্দ্রের তরফ থেকে রাজ্যকে আগাম ৪০০ কোটি টাকা দেওয়া হয়, সেই টাকা কোথায় কীভাবে খরচ করা হয়েছে সেটা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক।

এদিন নন্দীগ্রাম বিধানসভা কেন্দ্রের রেয়াপাড়ায় একটি সাংবাদিক একটি বৈঠক করেন শুভেন্দু অধিকারী। সেই বৈঠকে তিনি বলেন যে, ইয়াস মোকাবিলায় রাজ্য সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ প্রমাণিত। সরকার যশ আসার সাত-আটদিন আগেই এই বিষয়ে অবগত ছিল। কিন্তু তার শর্তেও উপকূলবর্তী এলাকায় শোচনীয় বাঁধ গুলি মেরামত করার কোনও কাজই করা হয়নি। শুভেন্দুবাবু বলেন, এই বিপর্যয়ের সময়েও রাজনীতি করতেই ব্যস্ত আছে তৃণমূল। আর সেই কারণে বিজেপির বিধায়কদের কাজ করতে দেওয়া হচ্ছে না। নন্দীগ্রামের বাঁশুলিচক ভেকুটিয়া অঞ্চল ১ নং জিপি তে সাইক্লোন ইয়াসের তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চল পরিদর্শন করে স্থানীয় মানুষের সাথে কথা বলে ক্ষয়ক্ষতির পরিসংখ‍্যান নিলাম ও দুর্গতদের ত্রিপল ও শুকনো খাবার বিতরণ করলাম।

রাজ্যকে যশ মোকাবিলার জন্য আগে থেকেই ৪০০ কোটি টাকা দেয় কেন্দ্র। তবে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টাকা বণ্টনে কেন্দ্রের ভূমিকায় প্রশ্ন তুলেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, “ওড়িশা ৬০০ কোটি টাকা পেল, কিন্তু বাংলাকে দেওয়া হল ৪০০ কোটি টাকা। আগামীকাল রাজ্যে আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বিধ্বস্ত এলাকাগুলো ঘুরে দেখবেন। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে একটি বৈঠকও হওয়ার কথা আছে। এখন দেখার বিষয় এটাই যে, ইয়াস মোকাবিলায় রাজ্যের জন্য কত টাকা বরাদ্দ করেন প্রধানমন্ত্রী।” রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান যে, যসের দাপটে রাজ্যে প্রায় ১৫ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী এদিন সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রের দেওয়া টাকা খরচ করা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। তিনি বলেছেন, কেন্দ্র যে ৪০০ কোটি টাকা অগ্রিম দিয়েছে সেই টাকা কীভাবে কোথায় খরচ হয়েছে সেটা জানার দরকার।।

Back to top button