রাজ্যপালকে ‘মাননীয় দালাল’ বলে সম্বোধন করে টুইট করলেন তৃণমূল প্রার্থী সায়নী ঘোষ

নিজস্ব প্রতিবেদনরাজ্য রাজনীতি তৃণমূল নেতাদের গ্রেফতারিতে উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে । ২০১৬ সালের নারদা মামলায় সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং মদন মিত্র। বর্তমানে শারীরিক অসুস্থতার কারণে এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়, শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং মদন মিত্র এবং প্রেসিডেন্সি জেলে রয়েছেন ফিরহাদ হাকিম।

এই ঘটনায় তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছেন। সেই সাথে প্রবল বিক্ষোভ দেখিয়ে চলেছে তৃণমূল কর্মী সমর্থকরাও। গতকাল এই মামলার দ্বিতীয় পর্যায়ের শুনানি থাকলেও তা বাতিল হয়ে গিয়েছে।  আজ এই মামলার শুনানি হতে পারে বলে জানা যাচ্ছে। এদিকে এই ঘটনাকে ঘিরে যথেষ্ট উত্তাপ ছড়িয়েছে বাংলার মাটিতে।

তৃণমূল নেতাদের গ্রেফতারির ঘটনায় অনেকের উত্তাপ গিয়ে পড়েছে রাজ্যপালের উপরে। এই গ্রেফতারির অনুমতি নাকি রাজ্যপাল‌ই দিয়েছিলেন। অনেকেই দাবী করেছেন যে রাজ্যপালের সাহায্যর জন্যই কেন্দ্রীয় সরকার এই কর্মকান্ড করতে আরো উৎসাহ পাচ্ছে। এদিকে আসানসোল দক্ষিণের তৃণমূল প্রার্থী সায়নী ঘোষ রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়কে একহাত নিয়েছেন । তিনি টুইটারে তীব্র আক্রমণ করে রাজ্যপালকে ‘মাননীয় দালাল’ বলে সম্বোধন করেছেন।

সায়নী টুইটে লিখেছেন,“এরা বাংলার দখল নিতে মরিয়া হয়ে উঠেপড়ে লেগেছে। আমাদের মাননীয় দালাল প্রশাসনিক কাজে বাধা দেওয়ার উদ্দেশ্যে অতিরিক্ত পরিশ্রম করে চলেছেন এবং বাংলার মাটিতে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার উদ্যোগ নিচ্ছেন। কিন্তু আমরাও দেখে নেব। ওরা যে আনন্দটা লাভ করতে চাইছে সেটা কখনোই হতে দেওয়া যাবে না। আমি সমস্ত তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের অনুরোধ করবো আপনারা কেউ লকডাউনের এই আবহে গন্ডগোল সৃষ্টি করবেন না। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিবাদ করুন। কোথাও জমায়েত করবেন না।”

Back to top button