“হয় ৩৫৬ ধারা, নাহলে পাল্টা মার” বাংলার মানুষকে বাঁচাতে এটাই শেষ উপায়! বললেন অর্জুন সিংহ

নিজস্ব প্রতিবেদননির্বাচনের পর তৃনমূল প্রার্থী ক্ষমতায় আসায় রাজ্যে আক্রান্ত কয়েক হাজার বিজেপি কর্মী সাথে সাংসদও। ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ জানান, হয় রাজ্যে ৩৫৬ ধারা লাগু হোক, নাহলে মারের বদলে পাল্টা মার দেওয়া হোক। তার সাথে রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন চালু করার দাবি করলেন।

মঙ্গলবার হেস্টিংসে বিজেপি অফিসে সাংগঠনিক বৈঠকে ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ বলেন, “আমরা যদি আমাদের কর্মীদের নিরাপত্তা দিতে না পারি, তাহলে আমাদের পদত্যাগ করা উচিৎ।” তাঁদের কাছে আরকোনোরাস্তানাথাকায় তিনি জানান, “হয় ৩৫৬, নাহয় পাল্টা মার।”

অর্জুন সিংহ রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি জানান তার প্রধান কারণ তার এলাকায় প্রায়ই রাজনৈতিক ঝামেলা চলতে থাকে। তারই একটা উদাহরণ দিলেন তিনি । তিনি বলেন, কিছুদিন আগেই তার এলাকায় বোমাবাজিতে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এমনকি তার বাড়ির সামনেও হয়েছে। সারারাত ধরে এই বোমাবাজি চলতে থাকে। তিনি প্রশ্ন তুললেন কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকার পরও সেখানে কি করে বোমাবাজি হয়?

তিনি জানান, ” নিজের আত্মরক্ষা করার জন্য আমার যা যা করণীয় তাই করব। আমাকে কেউ খুন করতে এলে, আমার মাকে কেউ ধর্ষণ করতে এলে, আমি যদি এরপরেও বেঁচে যাই, তাহলে আমি কাপুরুষ। কেউ আমার ক্ষতি করতে এলে, আমাকেও পাল্টা মার দিতে হবে। ভারতের সংবিধান আমাকে এই অধিকার দিয়েছে।”

তিনি বলেন, “বাংলায় এখন যদি রাষ্ট্রপতি শাসন জারি না করা হয়, তাহলে বাংলার একটা মানুষও বাঁচবে না। সংবিধানের অধিকার রক্ষা করার জন্য কেন্দ্র সরকারকেও তৎপর হতে হবে। রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন ছাড়া কোনও উপায় নেই। ৩৫৬ ধারা লাগু না হলে বাংলায় মানুষ বাঁচবে না।”

Back to top button