‘নির্বাচনে কাউন্টিং-এ কিছু কারছুপি হয়েছে’, বিস্ফোরক দাবি শিশির অধিকারীর

নিজস্ব প্রতিবেদনবর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ শিশির অধিকারী তার ছেলের হাত ধরেই বিজেপির পদে নাম লেখান। বাংলায় বিজেপির দারুণ সাফল্য আসলেও ডবল ইঞ্জিনের সরকার গড়ার স্বপ্ন অক্ষুণ্ণ থেকে যায় পদ্ম শিবিরের। বাংলায় বিজেপি হেরে যাওয়ার পর তার তেমন কিছু মুখ না খুললেও তীব্র মন্তব্য করলেন তিনি।

নির্বাচনের আগে দেখা গিয়েছিল বহু মানুষ তাদের পুরানো দল ত্যগ করে নতুন দল বিজেপিতে যোগদান করে। সেই মত তারা ২০০ টিরও বেশি আসনে জয়লাভ করার স্বপ্ন নিয়ে প্রচার, প্রস্তুতি, রোড শো, জনসভা ইত্যাদির মাধ্যমে মানুষকে তাদের দলে যোগ দেওয়ার উৎসাহ জুগিয়েছিল।

কিন্তু ফলপ্রকাশের পর দারুণ পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। যেখানে তাদের ২০০ টিরও বেশি আসনে জেতার আশা ছিলো সেখানে তৃনমূলের কাছে তারা বিরাট ব্যাবধানে হেরে যান। ফলে শাসনক্ষমতা আবার তৃনমূলের হাতেই চলে যায়। নির্বাচনের আগে মেদিনীপুর জেলার ৩৫টি আসনের মধ্যে সবকটিতেই বিজেপির জেতার স্বপ্ন দেখেছিলেন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে চলে আসা নন্দীগ্রামের বিজেপি বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু নির্বাচন শেষে তৃণমূলের দখলে চলে যায় সিংহভাগ আসন।

তবে নির্বাচন পরবর্তীতে সেভাবে কিছু না বললেও, এবারে তৃণমূলের জয়ের পেছনের নোংরা রাজনীতি কাজ করছে বলে জানালেন শিশির অধিকারী। তিনি বলেন, ‘দিনের আলোর মত পরিষ্কার যে কাউন্টিং-এ কিছু কারছুপি হয়েছে, নাহলে বাংলায় বিজেপির ভালো ফল হত। মানুষকে বোকা বানিয়ে মিথ্যের উপর দাঁড়িয়েছে রাজনীতি করছে তৃণমূল। ভবিষ্যতে ঠিক এর ফল পাবেন মমতা ব্যানার্জী’।

Back to top button