ভোট পরবর্তী ঘটনায় বিপাকে রাজ্য সরকার, ক’ড়া পদক্ষেপ নিল হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদন: নির্বাচনের পর থেকে রাজ্যে সবথেকে বড়ো সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে ভোট পরবর্তী হিংসা। যার ফলে বহু রাজনৈতিক প্রার্থী খুন ও ঘরছাড়া। রাজ্যে এই ভয়ংকর পরিস্থিতি থেকে রক্ষা পেতে অভিযোগকারীরা কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থে মামলা দায়ের করেন। কোর্ট কেন্দ্রীয় মানবাধিকার কমিশনের আধিকারিকদের পুরো ব্যাপারটাকে খুঁটিয়ে দেখতে বলেছেন এবং তারাই রিপোর্ট দেবে আদালতকে। আগামীকাল জানা যাবে এর ফল।

হাইকোর্ট জানিয়েছে, “ভোট-পরবর্তী হিং’সা’র কথা সেভাবে স্বীকার করেনি রাজ্য সরকার। কিন্তু আমাদের কাছে জমা পড়া অভিযোগ অনুযায়ী রাজ্যে নির্বাচন পরবর্তী হিংসার প্রমাণ মিলেছে। ঘরছাড়াদের ঘরে ফেরাতে যে কমিটি গঠন করা হয়েছিল তাতে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় মানবাধিকার কমিশনের আধিকারিক সহ রাজ্য লিগাল সার্ভিসের প্রতিনিধিরাও ছিলেন। কিন্তু কেন্দ্রের মানবাধিকার কমিশন সেভাবে সাহায্য পায়নি রাজ্যের থেকে।”

কিছু কিছু পুলিশ যারা যারা ঘরছেড়েছেন তাদের কাছ থেকে লিখে নিচ্ছেন যে তাদের এই অবস্থা ভোট পরবর্তী হিংসার জন্য হয়নি। তবে মানবাধিকার কমিশন ব্যাপারটিকে আরও গভীরে গিয়ে দেখবেন। আদালত জানিয়েছে, রাজ্য মানবাধিকার কমিশন নির্দেশ অমান্য করলে রাজ্যকে আদালত অবমাননার দায়ে পড়তে হবে।

প্রায় ৩২৪৩টি অভিযোগ জমা পড়ার কারণে রাজ্যকে এই সমস্যার মুখে পড়তে হচ্ছে। শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টে নির্দেশ দেন পাঁচ বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। তাদের বক্তব্য, প্রত্যেকের স্বাধীনভাবে বাঁচার অধিকার রয়েছে। তাই কোনরকম সন্ত্রাসের কারণে ঘরছাড়া হয়ে থাকার ঘটনা মোটেই কাম্য নয়।

Back to top button