সকাল থেকেই আকাশ কালো, এইসব জেলায় দিনভর বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির পূর্বাভাস

নিজস্ব প্রতিবেদন: রবিবাসরীয় ছুটি শেষে সোমবারের সকালে মুখভার আকাশের। একের পর এক বাজের আওয়াজে ঘুম ভাঙছে শহরবাসীর। সোমবার ভোর থেকেই কলকাতা সহ দুই ২৪ পরগণা ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে শুরু হয়েছে বজ্র বিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাত।

আলিপুরআবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, আজ দিনভর এমনই থাকবে আবহাওয়া, আরও জানা গিয়েছে, বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাতের সঙ্গে বইবে ঝোড়ো হাওয়া (ঘণ্টায় 30-40 কিমি)। আজ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা। সোমবার সারা দিন ধরেই দুই ২৪ পরগনা, ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, দুই বর্ধমান, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, কলকাতা, হুগলি, পুরুলিয়া, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ, নদিয়ায় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বৃষ্টি হতে পারে উত্তরবঙ্গেও। দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, কোচবিহার, দুই দিনাজপুর, আলিপুরদুয়ার, মালদাতেও হতে পারে বৃষ্টি। শুধু এই দুদিনই নয়, সপ্তাহের আগামী দিনগুলোতেও এমনই আবহাওয়া থাকবে বলে পূর্বাভাস হাওয়া অফিসের।

আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা যাচ্ছে, গতকাল শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৭.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি বেশি। আজ শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকতে পারে ৩৫.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছে এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকতে পারে ২৬.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছে, যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি কম। শহরে বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক ৯০ শতাংশ, ন্যূনতম ৬৮ শতাংশ।

আবহাওয়া দফতরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এবার ৩ জুন কেরলে বর্ষা ঢুকছে। বিশেষত, দেশের মধ্যে কেরলেই প্রথম বর্ষা ঢোকে। এ দেশে বর্ষা ঢোকার স্বাভাবিক সময় ১ জুন। বাংলায় বর্ষা ঢোকার স্বাভাবিক সময় সাধারণত ৮ জুন।

 

Back to top button