যোগী রাজ্যে ভেঙে ফেলা হল শতাব্দী প্রাচীন মসজিদ, ক্ষোভে ফুঁসছে মুসলিম সমাজ

নিজস্ব প্রতিবেদন: উত্তর প্রদেশের বারাবাঙ্কি নামক জেলার রামসেনহিঘাট তহসিলের একটি মসজিদ ভেঙে দেয় প্রশাসন। মসজিদ ভাঙার পর খবর চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে।এই ঘটনার পর মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ আপত্তি জানায়। দোষী দের করা শাস্তির আবেদন করে।ও মসজিদ পুনরায় নির্মাণের আবেদন জানান মুখ্যমন্ত্রীর কাছে। মঙ্গলবার মুসলিম ধর্মযাজকরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কাছে এই বিষয়ে লিখিত আবেদন জমা দেয়।অন্যদিকে জেলাশাসক আদর্শ সিংহ জানিয়েছেন যে, মসজিদটি সরকারি জায়াগায় অবৈধ ভাবে নির্মাণ করা হয়েছিল। এই ঘটনার পর রাজ্যের বিরোধী দল ও সমাজবাদী পার্টি এবং সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড আপত্তি জানান।

মুসলিম ধর্মগুরু মহম সাবির আলি রিজভি বলেন যে , গরিব নওয়াজ মসজিদটিকে প্রশাসন কোনও আইন না মেনেই সোমবার রাতের বেলা ভেঙে দেয়। ওই মসজিদ টি ১০০ বছরের পুরনো মসজিদ। আর সেটি উত্তর প্রদেশ সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ডের অধীনে রয়েছে। এই মসজিদ নিয়ে কোনওদিন কোন রকমের বিবাদ ছিল না। সরকার এই কাজে দোষী দের সাসপেন্ড করে কঠোর শাস্তি দিক এটাই আমার চাই। একজন সমাজসেবী জানান যে, মার্চ মাসে উপ জেলাআধিকারিক মসজিদ কমিটির কাছে মসজিদের সকল কাগজপত্র চেয়েছিল। ওই নোটিশের বিরোধিতা জানিয়ে মসজিদ কমিটি এলাহাবাদের হাইকোর্টে কাছে একটি পিটিশন জমা দিয়েছিল। তাঁদের পিটিশনে আদালত ১৮ মার্চ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে জবাব দেওয়ার সময় দিয়েছিল। তারপর ১ এপ্রিল মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে আদালতে জবাবও দিহি করা হয়। কিন্তু প্রশাসন এরপরেও অবৈধ ভাবে কিছু না জানিয়েই মসজিদটি ভেঙে ফেলার সিরধান্ত নেয় ও ভেঙে ফেলে।

তিনি বলেন যে , আমাদের দাবি হল যেসমস্ত আধিকারিকরা এই অবৈধ কাজের সঙ্গে যুক্ত আছে, তাঁদের চিহ্নিত করা হোক ই শাস্তি দেওয়া হোক। পাশাপাশি মসজিদের ধ্বংসাবশেষ সরানোর কাজ বন্ধ হোক। এবং মসজিদের জায়গায় অন্য কিছু করার যেন চেষ্টা না করা হয়।সরকারের কাছে মসজিদ পুনর্নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন তিনি।।

Back to top button