বিধিনিষেধের সুফল! গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে করোনা আক্রান্ত সাড়ে তিন হাজার

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনাকে নিয়ন্ত্রণে আনতে নাজেহাল রাজ্য। জারি করা হয়েছে একাধিক নিষেধাজ্ঞা। এদিন বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়ানো হল ১ জুলাই পর্যন্ত। এবং এই নিষেধাজ্ঞার সুফল প্রতিদিনই হতে নাতে মিলছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৩,৫১৯ জন। যা আগের দিনের তুলনায় অনেকটাই কম। মৃ’ত্যু’র গ্রাফও কমেছে। একদিনে করোনার মৃ’তে’র সংখ্যা ৭৮ জন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২,১৭১ রাজ্যবাসী।

স্বাস্থ্যদপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে সংক্রমিতদের মধ্যে ৫৮৪ জন হলেন উত্তর ২৪ পরগনার। অর্থাৎ দৈনিক সংক্রমিতের দিক থেকে এদিনও প্রথম স্থানে উত্তর 24 পরগনা। তবে আগের দিনের তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় সামান্য হলেও কমেছে সংক্রমণ। দ্বিতীয় স্থানে রয়ছে কলকাতা। এখানকার গ্রাফও নিম্নমুখী । একদিনে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৩৭৩ জন। তৃতীয় স্থানে রয়েছে হাওড়া। এখানে একদিনে সংক্রমিতের সংখ্যা ২৫৫ জন। দক্ষিণ ২৪ পরগনা রয়েছে চতুর্থ স্থানে। এখানে একদিনে সংক্রমিত ২৫২ জন। উত্তরবঙ্গের পাশাপাশি দক্ষিণবঙ্গের করোনা গ্রাফও বেশ খানিকটা নিম্নমুখী। কিন্তু দার্জিলিং ও  জলপাইগুড়িতে বাড়ছে সংক্রমণ। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে  মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪,৬৪,৭৭৬ জন।

একদিনে করোনায় আ’ক্রা’ন্ত হলে মা’রা গিয়েছেন রাজ্যের ৭৮ জন। তুলনায় অত্যন্ত সামান্য হলেও কমেছে। মৃতদের মধ্যে ১৭ জন উত্তর ২৪ পরগনার, ১১ জন কলকাতার, ৮ জন জলপাইগুড়ির। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে করোনায় মোট মৃ’তে’র সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৬, ৯৭৬। একদিনে করোনাকে জয় করে ঘরে ফিরেছেন ২, ১৭১ জন। রাজ্যে মোট করোনাজয়ীর সংখ্যা ১৪, ২৮, ৮৮১। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থতার হার ৯৭. ৫৫ শতাংশ। রাজ্যে বিধিনিষেধ জারি করার ফলে যে সুফল মিলছে এই পরিসংখ্যানই তার প্রমাণ। মে মাসের শুরুতে তীব্র বেগে বেড়েই চলেছিল সংক্রমণ। এখন তা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আছে।

Back to top button