দ্বিগুণ হচ্ছে কৃষকবন্ধু প্রকল্পের ভাতা, সিদ্ধান্ত মমতা সরকারের

নিজস্ব প্রতিবেদন: ফের মাস্টারস্ট্রোক বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। রাজ্যে প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মাননিধি প্রকল্পের টাকা পাওয়া নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। রাজ্যে তৃতীয়বার ক্ষমতায় এসে এই করোনাপরিস্থিতিতেও কৃষকদের দেওয়া কথা রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার বৃদ্ধি করা হল ‘কৃষকবন্ধু’ প্রকল্পের ভাতা।

বার্ষিক ৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০ হাজার টাকা করা হল ভাতা। জানা যাচ্ছে যে, বৃহস্পতিবার নবান্নে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্তটিতে সিলমোহর পড়েছে। কৃষকরা এতদিন বার্ষিক ৫ হাজার টাকা করে পেতেন, এবার থেকে বার্ষিক ১০ হাজার টাকা করে পাবেন। রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তে খুশি কৃষকমহল।

রাজ্যে কৃষির আরও উন্নয়নের দিকেও নজর রয়েছে সরকারের। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কৃষকদের পাশে দাঁড়াতে কৃষকবন্ধু প্রকল্প চালু করেছে। একুশের নির্বাচনের আগে তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো কৃষকদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, ক্ষমতায় ফিরলে এই ভাতার অঙ্ক বাড়ানো হবে। সেই কথা রাখলেন।

নবান্নে বৃহস্পতিবার রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠক ছিল। সেই বৈঠকেই কৃষকবন্ধু প্রকল্পে ভাতার অঙ্ক ৫ হাজার থেকে বাড়িয়ে ১০ হাজার টাকা করার সিদ্ধান্তে সিলমোহর দেয় মন্ত্রিসভা। একলপ্তে দ্বিগুণ। লক্ষণীয়, কেন্দ্রীয় সরকারের ‘কিষাণ সম্মান নিধি’ প্রকল্পের সঙ্গে রাজ্য সরকারের এই ‘কৃষকবন্ধু’ প্রকল্পের দরকষাকষি বরাবরই ছিল। একুশের নির্বাচনের আগে বিজেপির পক্ষ থেকে নেতা-মন্ত্রীরা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, বছরে ৬ হাজার টাকা করে ভাতা পাবেন কৃষকরা।

এবং যেহেতু গত দু’‌বছর ধরে কেন্দ্রের প্রকল্পটি চালু হওয়া পরও বাংলায় তা কার্যকর হয়নি, তাই সবমিলিয়ে ১৮ হাজার টাকা প্রতি কৃষককে দেওয়া হবে। বার্ষিক ৬ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে সেই অঙ্ক ১০ হাজার করা হবে। তবে বিজেপির বাংলা দখলের অসফল হওয়ায় প্রতিশ্রুতি পালনেরও বাধ্যবাধকতা আর থাকলো না। বরং দ্বিগুণ টাকা ‘কৃষকবন্ধু’ প্রকল্পের ভাতা বৃদ্ধি করে কৃষকদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি রক্ষা করলেন তৃণমূল কংগ্রেস সরকার।

Back to top button