২৭ তলা বাড়িতে থাকেন ৫ সদস্যের একটি পরিবার, সাথে ৬০০ কাজের লোক

নিজস্ব প্রতিবেদন: অট্টালিকা বাড়ি বানিয়েছেন নিজের স্ত্রী এবং তিন সন্তানের বসবাসের জন্য। ১০০ কোটি পাউন্ড খরচ হয়েছে বাড়িটি নির্মাণ করতে। তিনটি হেলিপ্যাড আছে ২৭ তলার এই বাড়িতে। একটি ৫০ আসনের থিয়েটারও আছে। বাড়িতে আছে ৬০০-এর অধিক কাজের লোক। এখানে যার কথা বলা হচ্ছে, তিনি আর কেউ নন এশিয়ার সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি মুকেশ আম্বানি। একটি পরিবারের জন্য এত বড় বাড়ি এবং দেখাশোনার জন্য এত কাজের লোক সম্ভবত পৃথিবীর কোথাও নেই।

বহুতলবিশিষ্ট বাগান এবং বিস্ময়কর পানির ফিচারও আছে আম্বানির বিলাসিতার জন্য। ২৭ তলার এই অট্টালিকার বৈশিষ্ট্য হলো প্রতিটি তলার সিলিং এক একটি এক একটির দিকে বের করে দেওয়া। একটি গ্র্যান্ড বলরুম আছে অতিথিদের জন্য। ৯টি এলিভেটর বা লিফট আছে লবি থেকে। একটি ঝুলন্ত সুইমিংপুল আছে অ্যাপার্টমেন্টের এক সাইডে। গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা আছে ষষ্ঠ তলায়। মোট ১৬০ টি গাড়ি রয়েছে সেখানে। আর বাড়ীতে দেখাশোনা এবং পরিষ্কার করার জন্য রয়েছে ৬০০-এর অধিক স্টাফ।

আবাসিক ভবনে এর চেয়ে বেশি খরচের প্রযুক্তি আছে। আর সেটি হলে বাকিংহাম প্যালেস। কিন্তু ব্রিটেনের এই অট্টালিকা ক্রাউন ল্যান্ড বা রাজকীয় জমিতে। কিন্তু মুকেশ আম্বানির এই বাড়িটি সম্পূর্ণ নিজস্ব। নিজের এয়ারবাস জেটে চলাচল করেন মুকেশ আম্বানি। একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মালিক তিনি। সঙ্গে আইপিএলের একটি টিমের মালিক তিনি। ভারতের শীর্ষ ধনীর খেতাব পান রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ-এর চেয়ারম্যান হওয়ার পর। বর্তমানে তার সম্পদের পরিমাণ ৪৫০০ কোটি ডলার।

মুকেশ আম্বানির এই বাড়িতে নিয়ে লেখকের জ্ঞানপ্রকাশ ২০১০ সালে নিউইয়র্ক টাইমসে লিখেছিলেন,” আকাশ ছোঁয়ার গেট হলো এই বাড়িটি। মনিরা কিভাবে শহর থেকে দূরে মুখ রাখতে চান, বাস করতে চান, তার ভাবমূর্তি ফুটে ওঠে এই বাড়িতে।”

Back to top button