সব্যসাচীর বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে ফেরা নিয়ে জল্পনা রাজ্য রাজনীতিতে

নিজস্ব প্রতিবেদননেতৃত্বের উপর ক্ষোভ উগরে দিয়ে তৃণমূল ছেড়ে BJP-তে যোগ দিয়েছিলেন বিধাননগরের প্রাক্তন মেয়র সব্যসাচী দত্ত। দলবদলের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে একাধিকবার সরব হতে দেখা যায় রাজারহাট-নিউটাউনের প্রাক্তন বিধায়ককে। একুশের এই নির্বাচনে BJP থেকে টিকিট পেয়ে বিধাননগরে লড়েছিলেন সব্যসাচী। কিন্তু, একদা সতীর্থ সুজিত বসুর কাছে হেরে যান তিনি। তারপর থেকে সেভাবে তাকে দেখা যায়নি। সব্যসাচীর তৃণমূলে ফেরা নিয়ে জল্পনা চলছে রাজ্য রাজনীতিতে।তা নিয়ে এবার মুখ খুললেন সব্যসাচী।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “উনি আমার থেকে বয়সে বড়। ব্যক্তিগত ক্ষেত্রে খারাপ সম্পর্ক হয়নি। অনেক সিনিয়র আমার থেকে। ওঁর রাজনৈতিক ম্যাচিওরিটির সঙ্গে আমার কোনও তুলনা চলে না। ওঁর সঙ্গে আমার কোনও প্রতিযোগিতা নেই’। সব্যসাচীরই একদা সতীর্থ সোনালি গুহ, সরলা মুর্মুরা তৃণমূলে ফিরতে চাইছেন। এই কথা শোনামাত্রই সব্যসাচী বললেন, ‘যাঁরা ফিরতে চাইছেন, সেটা তাঁদের ব্যাপার”। এরপরই তাঁর তৃণমূলে ফেরার জল্পনা প্রসঙ্গে সব্যসাচী বলেন, ‘আমার সঙ্গে কারও কোনও কথা হয়নি। এই জল্পনা মিডিয়ার তৈরি’। অন্যদিকে, ভোটে পরাজিত হয়ে সব্যসাচী বললেন, ‘দলের কোনও পর্যালোচনা হয়নি এখনও। আগামী দিনে দলের কর্মী হিসেবেই দেখা যাবে আমায়’।

আরেক দিকে, একুশের ভোটে ঐতিহাসিক জয় লাভের পর কালীঘাটে সাংবাদিক বৈঠকে দলবদলুদের দলে ফেরার প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন যে, “আসুক না। কে বারণ করেছে? এলে স্বাগত!” তৃণমূলনেত্রীর এই মন্তব্যের পর দলবদলুদের তৃণমূলে ফেরার জল্পনা আরো বেড়ে যায়। ভোটে হেরেছেন ডোমজুড়ের প্রাক্তন বিধায়ক রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর মুখেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে প্রশংসা শোনা গিয়েছিল। যদিও তৃণমূলে ফিরে যাওয়ার জল্পনা উড়িয়ে দেন তিনি।।

Back to top button