১৫ বছর বয়সেই গবেষণা, মাধ্যমিক দেওয়ার বয়সে পিএইচডি করে সকলকে চমকে দিল এই খুদে

নিজস্ব প্রতিবেদন: 15 বছর বয়সী এক বাচ্চা ছেলে সারা বিশ্বের মানুষকে হতবাক করে দেয় তার কর্মকাণ্ডের ফলে। মাত্র ৭ বছর বয়সে ছেলেটি একসাথে তিনটি কলেজে ভর্তি হয়ে ১৪ বছর বয়সে গবেষণায় ভর্তি হয়। এই খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক পরিমাণে ভাইরাল হয়। বহু মানুষ তার এই ট্যালেন্টকে দেখে একদম হতবাক।

ছেলেটির নাম তানিষ্ক আব্রাহাম। বর্তমানে সে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োকেমিক্যাল ইন্জিনিয়ারিং এর স্নাতক ডাইরেক্টর হিসেবে প্রস্তুতি নিচ্ছে। ইতিমধ্যেই তার আবিষ্কার সমস্ত বিজ্ঞান বিভাগকে অবাক করে দিয়েছে। একটি পুড়ে যাওয়া রোগীর শরীরে কোনো রকম স্পর্শ না করে হৃদ গতি মাপার যন্ত্র সে আবিস্কার করেছে।

ছেলেটির বাড়ি ভারতের কেরালায়। ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে সে পড়াশুনো করে। তার বাড়িতে মা-বাবা এবং দাদু ঠাকমা সবাই খুব শিক্ষিত। তাই সেও খুব শিক্ষিত। সবথেকে অবাক করার বিষয় হল নার্সারিতে পড়াকালীন সে অনেক উঁচু ক্লাসের নানা ধরনের জটিল অংক সমাধান করে দিতে পারত।

ঘটনাগুলি তার মা বাবাকে বুঝিয়ে দেয় যে সে অত্যন্ত মেধাবী একজন ছাত্র। সে একসাথে ৩ টি কলেজ থেকে ডিগ্রি নিয়ে পাশ করে। বর্তমানে সে চায় ক্যান্সারের মতো রোগের ঔষধ তৈরির উপর গবেষণা করতে।

Back to top button