জীবনের নতুন অধ্যায়, আমি থেকে আমরা, ফেসবুকে বৈশাখী এখন ‘বৈশাখী শোভন ব্যানার্জি’

নিজস্ব প্রতিবেদন: বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এর ফেসবুক প্রোফাইল বদলে গেল রাতারাতি, তার নামের পাশে যুক্ত করলেন শোভনের নাম। প্রোফাইল পিকচারও বদলে দিয়েছেন রাতারাতি। প্রোফাইল পিকচারে যে ছবি দেওয়া হয়েছে সেখানে শোভন এবং বৈশাখী উভয়ই উভয়ের দিকে হাসি হাসি মুখে তাকিয়ে আছে। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন,‘The journey from Me to We begins…’

সোশ্যাল মিডিয়াতে তাদের বন্ধুত্ব নিয়ে চর্চা লেগেই আছে। তাদের ব্যক্তিগত সম্পর্ক নিয়ে অনেকবার প্রশ্ন উঠেছে রাজনীতির ময়দানেও। শোভনের স্ত্রী কখনো প্রকাশ্যেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে, কখনও সাধারণ মানুষের কটাক্ষের সম্মুখীন হয়েছেন। তবুও এই জুটি উভয়ের ভালো-মন্দে উভয়ই পাশে থেকেছেন, কারোর কটাক্ষে কর্ণপাত করেননি তারা।

এই জুটি কি এখন তবে বন্ধুত্বের উর্ধ্বে কোন সম্পর্ক গঠন করতে চাইছে? এসব প্রশ্ন মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে, বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফেসবুক প্রোফাইলের নাম পরিবর্তন হওয়ার পরেই। এক সংবাদ মাধ্যমকে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মতামত নিয়েই প্রোফাইলের নাম পরিবর্তন করা হয়েছে। কিন্তু হঠাৎ করে কেন এ সিদ্ধান্ত তা স্পষ্টভাবে বলেননি তিনি।

এরমধ্যে শোভন এবং রত্নার গৃহবিবাদ ফের সবার সামনে আসলো। শোভন চট্টোপাধ্যায় তাঁর স্ত্রী রচনা চট্টোপাধ্যায় বিরুদ্ধে পূর্বেও সরব হয়েছিলেন। নারদ মামলায় গ্রেপ্তার হওয়ার পর সুমন চট্টোপাধ্যায় কে নিজাম প্লেসে দেখতে গিয়েছিলেন তাঁর স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু শোভন চট্টোপাধ্যায় যে ভালো চোখে রত্নার ভূমিকাকে দেখেননি তা আগেই বুঝিয়ে দিয়েছিলেন।

এমনকি একদিন শোভন বাবু ফেসবুক লাইভে বলেন,” রত্নাকে বিয়ে করা আমার সবথেকে বড় ভুল কাজ ছিল।” বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় কটাক্ষ করতে ছাড়েননি রত্না চট্টোপাধ্যায়কে। রত্না চট্টোপাধ্যায় এইসব ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বলেন,”দুজন কলঙ্কিত নায়ক-নায়িকা। ছাত্র-যুব সমাজকে কী শেখাচ্ছেন? তাঁরা যেন আমায় শিক্ষা দিতে না আসে।” এই ঘটনার পরেই বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এর ফেসবুক প্রোফাইলের নাম পরিবর্তন হলো। রাজনৈতিক মহল মনে করছে, বৈশাখী-শোভন এক নতুন জীবন শুরু করার ইঙ্গিত দিলো এর মাধ্যমে।

Back to top button