উঠছে না লকডাউন, ফের জারি নয়া বিধিনিষেধ

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনা ভাইরাস যেতে না যেতেই এবার দেখা গিয়েছে নোবেল করোনাভাইরাসের ডেল্টা প্লাস প্রজাতি। সেই কারণেই মহারাষ্ট্রসরকার লকডাউন তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্তকে সম্পূর্ণ ভাবে প্রত্যাহার করল। এবং জেলা প্রশাসনকে নতুন করে বিধিনিষেধক কার্যকর করার নির্দেশ দেওয়া হল। এই করোনার ডেল্টা প্লাস প্রজাতিতে সংক্রমিত এক বৃদ্ধার মৃত্যুর পরই উদ্ধব ঠাকরে সরকার এই নির্দেশ দিল।

শুক্রবার প্রথম বার ডেল্টা প্লাস প্রজাতিতে সংক্রমিত হয়ে মৃত্যু ঘটেছে মহারাষ্ট্রে। ডেল্টা প্লাস আক্রান্ত এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে রত্নগিরি জেলা হাসপাতালে। রাজ্যের তরফে নির্দেশিকা জারি করে জানানো হয়, সমস্ত জেলাগুলিকে ত্রিস্তরীয় বিধিনিষেধ কার্যকর করতে হবে। রাজ্যের মুখ্যসচিব সীতারাম কুন্তে বলেন, ‘ভৌগলিক অবস্থান অনুযায়ী, কোভিড যে ভাবে চরিত্রবদল করছে, তাতে সংক্রমণ এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা লোপ পাওয়ার সম্ভাবনা তীব্র হচ্ছে। তাই সাপ্তাহিক সংক্রমণের হার যতই কম হোক, হাসপাতালে শয্যার অভাব না থাকুক, পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত ত্রিস্তরীয় বিধিনিষেধ কার্যকর থাকবে।’

এই ত্রিস্তরীয় বিধিনিষেধ অনুযায়ী স্যালোঁ, স্পা, রেস্তরাঁ, শরীরচর্চা কেন্দ্র বিকেল ৪টে পর্যন্ত খোলা রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে ৫০ শতাংশের বেশি গ্রাহক প্রবেশ করতে পারবে না। বেসরকারি দফতরগুলিকেও ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়োগ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। শ্রাদ্ধানুষ্ঠান, বিয়েবাড়ি ৫০ জনের বেশি অতিথি জমায়েত করলে হবে না। এবং শপিংমল, থিয়েটার আগে যেমন বন্ধ ছিল তেমনি বন্ধ থাকবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা WHO ডেল্টা এবং ডেল্টা প্লাস প্রজাতিকে নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এই প্রজাতি অনেক বেশি সংক্রামক এবং অত্যন্ত দ্রুত ফুসফুসকে কাবু করে নেয় বলে। অ্যান্টিবডিও এর বিরুদ্ধে দুর্বল হয়ে পড়ে। মহবারাষ্ট্রের অনেক জেলার বেশ কিছু রোগীর শরীরে ইতিমধ্যেই ডেল্টা প্লাস প্রজাতি ধরা পড়েছে। মহারাষ্ট্র সরকার জানিয়েছে, তাই আগামী দু’সপ্তাহ সংক্রমণের হারের উপর RTPCR পরীক্ষার মাধ্যমে নজর রাখতে হবে। সেই বুঝে বিধিনিষেধ নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত গৃহীত হবে। তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ৭০ শতাংশ নাগরিকের টিকাকরণ করে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জেলা প্রশাসনকে।

Back to top button