“দিলীপ ঘোষকে জানিয়ে লাভ হয়নি।”- একদিনে ৩ হাজার বিজেপি নেতা কর্মী যোগদান করলো তৃণমূলে

নিজস্ব প্রতিবেদনবিধানসভা ভোটের আগে তৃণমূলের প্রভাবশালী নেতা নেত্রীরা নাম লিখিয়েছিলেন বিজেপিতে। সবাই এটাই ধারণা করেছিল যে বাংলা থেকে হয়তো চিরদিনের মতো বিদায় নিতে চলেছে তৃণমূল। কিন্তু ঠিক উল্টোটাই হল। ২০০ শোরও বেশী ভোটে তৃনমূল এগিয়ে গেলো বিজেপির থেকে।

তৃনমূলের কাছে হেরে যাওয়ার পর যারা নির্বাচনের আগে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিল তারা সবাই আবার তৃণমূলে ফিরে আসতে চাইছে। বেশ কিছু বিজেপি নেতাও তাদের দল বদলাতে চাইছেন। তবে তৃনমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা মুকুল রায় কি আবারও দল পাল্টাতে চাইছেন এই নিয়ে যথেষ্ট চিন্তা ভাবনার মধ্যে আছে বিজেপি। কেতুগ্রামে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন প্রায় তিন হাজার নেতা কর্মীরা।

দল ছাড়া কর্মীরা জানিয়েছন, তারা বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের কাছে তাদের অনেক সমস্যা, অভাব, অসহায় অবস্থার কথা জানিয়েছেন কিন্তু তিনি কোনো পদক্ষেপ নেননি। তাই তারা বাধ্য হয়ে দল ছাড়লেন। কেতুগ্রামে ১ নম্বর ব্লকের মণ্ডল সম্পাদক পিন্টু দাস, আইটি সেলের নেতা বীর প্রধান, আরও বেশ কয়েকজন বিজেপির বুথ সভাপতি তৃণমূলে যোগ দিয়েছে। দল ছাড়া নেতারা বলেছেন, “রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ কে আমরা কর্মীদের অসহায় অবস্থা সম্পর্কে অবগত করেছিলাম। কিন্তু দলের শীর্ষ নেতারা কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি।”

Back to top button