টাকার বিনিময়ে সেচ দফতরে চাকরি! কলকাতা পুলিসের হাতে পাকড়াও শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ

নিজস্ব প্রতিবেদন: শুভেন্দু অধিকারীর এক ঘনিষ্ঠ কে গ্রেফতার করা হল আর্থিক দুর্নীতি মামলায়। ধৃতের নাম রাখাল বেরা। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে সরকারি চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার। কলকাতা পুলিশ রাখালকে শনিবার সন্ধ্যেবেলায় গ্রেপ্তার করে।

অশোকনগরের এক বাসিন্দা সুজিতদা জানতে পারেন টাকার বিনিময়ে নাকি সেচ দপ্তরে চাকরি পাওয়া যাচ্ছে। এ খবর পেয়ে রাখাল বেরা এবং চঞ্চল বেরার সঙ্গে যোগাযোগ করেন তিনি। টাকা দিয়ে পরে চাকরি না দেওয়ায় পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন সুজিত। সুজিত বাবুর বক্তব্য, রাখাল বেরা তাঁকে প্রতিশ্রুতি দেন প্রথমে চুক্তিভিত্তিক এবং পরে স্থায়ী চাকরির ব্যবস্থা করে দেবেন।

২ লক্ষ টাকা ঝেপে নিয়েছিলেন দুটি কিস্তিতে। টাকা এবং চাকরি কোনোটিই না দেওয়ায় পুলিশের কাছে অভিযোগ জানালে পুলিশ তদন্ত শুরু করে। হোয়াটসঅ্যাপে বিভিন্ন কথোপকথন এবং প্রমাণ পাওয়ার পর পুলিশ শনিবার সন্ধ্যেবেলায় গ্রেফতার করে রাখালকে। শুধুমাত্র সুজিত নয় কমপক্ষে আরও ৬০ জন মানুষকে এভাবে ঠকিয়েছে রাখাল, রাখাল প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে কেউ প্রকাশ্যে আসতে চাইছে না।

ঘটনাটি ২০১৯ সালের, যখন পশ্চিমবঙ্গের সেচমন্ত্রী ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। আর এই রাখাল বেরা শুভেন্দু অধিকারীর ঘনিষ্ঠ একজন। এতোটাই ঘনিষ্ঠ যে পুলিশ রাখালের কাছে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল নারদ কান্ডে শুভেন্দু অধিকারীর ভূমিকা কতটা ছিল তা যাচাই করতে।

Back to top button