গ্যাস সিলিন্ডারের নিচে বিশালাকৃতির কোবরা; নেটদুনিয়ায় ঝড়ের গতিতে ভাইরাল ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন: বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়া দিন প্রতিদিন আমাদের আরো উন্নততর করে তুলছে। সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্যে আমরা পৃথিবীর প্রতিটি কোণার খবর খুব সহজেই জেনে নিতে পারি মুহূর্তের মধ্যে। খুব সহজেই আমাদের কাছে এই খবরগুলি চলে আসে।পূর্ববর্তী সময়ে সাধারণত চিঠি আদান-প্রদানের মাধ্যমে আমরা দূরবর্তী স্থানের সাথে যোগাযোগ বজায় রাখতাম।

কিন্তু বর্তমান সময়ে সেই নিয়মের অনেকটাই পরিবর্তন হয়ে গিয়েছে।অনেক বিশেষজ্ঞরা মনে করেন সোশ্যাল মিডিয়া গণমাধ্যম এর থেকেও বেশি শক্তিশালী হয়ে উঠছে ক্রমাগত। গণমাধ্যম অর্থাৎ টেলিভিশন, সংবাদপত্র প্রভৃতির আগেই সোশ্যাল মিডিয়াতে যে কোন খবর ছড়িয়ে পড়তে থাকে। আমরাও যেকোনো সংবাদ প্রাপ্তির জন্য নেটদুনিয়ার উপরেই সম্পূর্ণরূপে নির্ভরশীল থাকি।

সোশ্যাল মিডিয়ার শুধুমাত্র দূরবর্তী স্থানের সাথে যোগাযোগ বজায় রাখা নয়, নানান ধরনের প্রতিভার বিকাশও লক্ষ্য করা যায়। এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমেই রানু মন্ডল এর মত প্রতিভার খোজ পেয়েছি আমরা। স্টেশনে গান গাইতে থাকা এই রানু মন্ডল এর খোঁজ পেয়ে অতীন্দ্র চক্রবর্তী নামে এক যুবক তা ভিডিও করে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেন।এখান থেকেই আমাদের রানুদি এতটাই জনপ্রিয়তা পান যে বলিউডের গান গাইতে সক্ষম হন।

লকডাউন এরপর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ার প্রতি মানুষের নির্ভরশীলতা আরো বেড়ে চলেছে। তার কারণ লকডাউন মানুষের জীবনে বিশাল পরিবর্তন এনে দিয়েছে। ঘর বন্দী অবস্থায় থাকার পর লকডাউন চলাকালীন মানুষ স্বাভাবিক ভাবেই নিজেদের বিভিন্ন প্রতিভার বিকাশ ঘটিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে। এই সময় অনেককেই দেখা গিয়েছে নিজেদের নাচ বা গানের, আবৃত্তির বা রান্নার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করতে।

সম্প্রতি কিছুদিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন এক ব্যক্তির ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল যিনি নিজের প্রাণের তোয়াক্কা না করে বিষধর সাপের ছোবল থেকে কিছু মানুষকে প্রাণে বাঁচিয়েছিলেন। আবারো এরকম একটি ভিডিওর খোঁজ পাওয়া গেল নেট দুনিয়ায়। যে ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে একটি বাড়িতে রান্নার গ্যাসের নিচে একটি বিষধর সাপ ঢুকে পড়েছে।সাপটি প্রথমে ঘরে ঢুকে মানুষের ভয়ে গ্যাসের সিলিন্ডারের তলায় কুণ্ডলী পাকিয়ে বসেছিল।

কিন্তু এরপরেই সর্প রক্ষা কমিটির লোকেরা এসে সেই সাপটি কে উদ্ধার করার চেষ্টা করেন।তাদের মধ্যে অত্যন্ত সাহসী মির্জা মহাম্মদ আরিফ নামের এক ব্যক্তি এই সম্পূর্ণ সাপ ধরার কাজটিকে সমাপন করেন। প্রথমবার সাপটিকে ধরার সময় সে অত্যন্ত ক্রুদ্ধ হয়ে ছোবল মারার চেষ্টা করে। যদিও আরিফের সাহসিকতা থাকায় সাপটির সেই চেষ্টা সফল হয়নি।

এই সম্পূর্ণ সাপ ধরার ভিডিও টি আরিফ নিজের ইউটিউব চ্যানেল থেকে শেয়ার করেছেন দর্শকদের উদ্দেশ্যে। নাগ লোক নামে তার এই ইউটিউব চ্যানেলটি বেশ জনপ্রিয় দর্শকদের মাঝে।শুধুমাত্র সাপ ধরার ভিডিও নয় এই সাপটির সম্বন্ধে সেই ভিডিওতে নানান ধরনের তথ্য দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি জানিয়েছেন, প্রজননের সময় সাপগুলি যেখানে সেখানে ঢুকে পড়তে পারে। তাই এই সময় অত্যন্ত সাবধানে থাকা উচিত। চাইলে আপনিও এই অসাধারণ ভাইরাল ভিডিওটি দেখে আসতে পারেন এবং বন্ধু-বান্ধবদের সাথে শেয়ার করতে পারেন।

Back to top button