দুঃসময়ে মানুষের পাশে চন্দনা বাউড়ি, ভারত সেবাশ্রম সংঘের দেওয়া ত্রাণ তুলে দিলেন ১৫০ টি পরিবারের হাতে

নিজস্ব প্রতিবেদন: নির্বাচনে বিজেপির পক্ষ থেকে বাঁকুড়ার শালতোড়ার চন্দনা বাউড়ি তুমূল প্রচার চালিয়ে বিজেপিকে জয় এনে দিয়েছিলেন। তিনি অবশ্যই দরিদ্র প্রার্থীর মধ্যে একজন ছিলেন।তিনি অত্যন্ত গরিব থাকার সত্ত্বেও প্রচারের মাধ্যমে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছিলেন। তিনি এখন বিজেপি বিধায়কের আসনে বসেছেন। করোনা পরিস্থিতিতেও তিনি মানুষের পাশে আছেন, খুব দরকার পড়লে তিনি নিজে তাদের বাড়িতে যাচ্ছেন। বিধায়ক হওয়ার পর তিনি একবারই বিধানসভায় যেতে পেরেছিলেন, শপথ গ্রহণ করার জন্য।

আজ তিনি শালতোড়ায় বাঁকুড়া জেলার সংসদ ডঃ সুভাষ সরকার মহাশয় এবং বাঁকুড়া জেলার জেলা সভাপতির বিবেকানন্দ পাত্র মহাশয়ের উপস্থিতিতে রাজারামপুর গ্রামে ভারত সেবাশ্রম সংঘের বালিগঞ্জ শাখা থেকে প্রাপ্ত 150 টি ত্রাণ সামগ্রী গরিব পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছেন। তিনি মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে ভালোবাসেন। কারোর বিপদে তিনি ছুটে যান। তার পাশাপাশি এরকম একটি ভালো কাজ করলেন তিনি। সোশ্যাল মিডিয়াতেও এই কাজের নমুনা পোস্ট করেন তিনি।

কিছুদিন আগেই এক সংবাদপত্রে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় তাদের প্রশ্নের পাল্টা জবাবে তিনি জিজ্ঞাসা করেন,‘কত টাকা মাইনে পাব?’ তারা একটু হিসেব নিকেশ করে জবাব দেন এক বিধায়ক মাসে প্রায় ৮২ হাজার টাকা পান। আর জুন মাসের মধ্যে শপথ গ্রহণ করে তার যদি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে যায় তবে তিনি প্রায় ১ লক্ষেরও বেশি টাকা পাবেন। শুনে তিনি হতবাক হয়ে গেলেন এবং ভেবে পাচ্ছিলেন না কি করবেন।


তিনি বলেন, “বেতনের এত টাকা তো আমার দরকার নেই। আমাদের এখানে রাস্তার অবস্থা খুবই খারাপ, বর্ষার সময় জল জমে, আবার খাবার জলেরও অনেক সমস্যা। বেতনের টাকা দিয়ে রাস্তাঘাট মেরামত এবং পানীয় জলের সংকট দূর করার চেষ্টা করব। আর প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় ঘর বানাচ্ছি, ওতেই আমার চলে যাবে। ছেলেমেয়েদের পড়াশুনা শেখাচ্ছি, ওদের ভবিষ্যৎ ওরাই তৈরি করে নেবে”।

Back to top button