ছেলে হবে নাকি মেয়ে! সন্তানের জন্মের আগেই লিঙ্গ নির্ধারণের কেক এল অভিনেত্রী-সাংসদ নুসরতের বাড়িতে

নিজস্ব প্রতিবেদন: জন্মের আগে লিঙ্গ নির্ধারণ করা আমাদের দেশে একটা বড়ো অপরাধ। সেই কারণে কোনো হাসপাতালে লিঙ্গ নির্ধারণ হয়না। সে সন্তান ছেলে হোক বা মেয়ে আপনাকে সেই সন্তানকে গ্রহণ করতেই হবে। এমন অনেক জায়গা আছে যেখানে মেয়ে সন্তান ফেলে দেওয়া হয় বা বিক্রি করে দেওয়া হয়, সেজন্য জন্মের আগে লিঙ্গ নির্ধারণ করার জন্য ভ্রূণ পরীক্ষা করা আইনত অপরাধ। অন্যদিকে নুসরত তার সন্তানের আশায় বসে আছেন।

ইতিমধ্যে একটা কেক অর্ডার দিয়ে ফেলেছেন। তাতে বয় অর গার্ল লেখা আছে। কেকটি নীল ও গোলাপী রঙের। ভিতরটা নীল হলে পুত্র এবং গোলাপী হলে কন্যা। এখন আপনার মনে প্রশ্ন উঠছে যে, এটা আবার কোথাকার নিয়ম?

সাধারণত আমরা জানি যে, ছেলে বা মেয়ে হয়েছে কিনা এটা জেনে কেক কেটে সেলিব্রেট করা হয় পাশ্চাত্য সংস্কৃতিতে। এখানে যিনি কেকটাকে তৈরি করেন কেবলমাত্র তিনিই সন্তানের লিঙ্গটি জানতে পারেন। কেক বানানোর সময়ে কেকটার ভিতরে সন্তানের লিঙ্গ অনুযায়ী নীল অথবা গোলাপি রঙের স্তর দেওয়া হয়। নীল স্তর অর্থাৎ পুত্রসন্তান হবে, এবং গোলাপি অর্থাৎ কন্যাসন্তান। সুতরাং, নুসরত হয়ত এতক্ষণে তার পুত্র না কন্যা হবে এটা জেনে গিয়েছেন।

শোনা গিয়েছে, নুসরত সেপ্টেম্বরে সন্তান প্রসব করবেন। তাই এখন ভরা মাস চলছে। এখন আবার ইনস্টাগ্রামে কখনো বিভিন্ন খাওয়ায় ছবি, আবার কখনো পজিটিভ মেসেজ দিচ্ছেন নুসরত। তাকে নিয়ে জনরোষ, ধিক্কার, বিতর্ক থাকলেও নুসরত তার জীবনে নিজের মতন ভালোই আছেন।

Back to top button