ঘূর্ণিঝড়ের আতঙ্কে কাঁপছে বাংলা, জেনে নিন, কী করবেন, কী করবেন না

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমফান-এর রেশ কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই বাংলায় আসতে চলেছে আর এক ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’। বাংলার দিকে গভীর নিম্নচাপ এগিয়ে আসছে বলে খবর আবহাওয়া দপ্তরের তরফ থেকে। এই নিম্নচাপ থেকে ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’ এর সৃষ্টি হতে চলেছে আগামীকাল। গতকাল রাত্রে বেলায় কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের কোনো কোনো জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা বৃষ্টির সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া দেখা গিয়েছে। আজ অর্থাৎ সোমবার অস্বস্তিকর গরম থাকবে বলে জানানো হয়েছে আবহাওয়া দপ্তর এর তরফ থেকে। উপকূলবর্তী অঞ্চলে আজ বিকাল থেকে দেখা মিলতে পারে বৃষ্টির। আগামীকাল থেকে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে থাকবে।

ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’ আসার আগে জেনে নিন কী করবেন আর ভুলেও কী করবেন না

কী করবেন: গুজবে কান দেবেন না। সংবাদমাধ্যমগুলির মাধ্যমেই ঘূর্ণিঝড় সম্পর্কে নিজেকে আপডেটেড রাখুন।
অত্যাবশকীয় ওষুধ, সামগ্রী, জল সংগ্রহ করুন। পাকা বাড়িতে থাকুন। কাঁচা কিংবা বিপজ্জনক বাড়ি এড়িয়ে যাওয়াই ভাল।পোশাক তৈরি রাখুন। মোবাইল ফোনে চার্জ দিয়ে রাখুন। পাওয়ার ব্যাংক, এমার্জেন্সি আলো থাকলে চার্জ দিয়ে রাখুন। টর্চ, মোমবাতির বন্দোবস্ত করে রাখুন।জরুরি নথিপত্র এবং মূল্যবান সামগ্রী গুছিয়ে রাখুন। আবহাওয়া দপ্তরের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে এই সময় মৎস্যজীবীরা সমুদ্রে যাবেন না। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিন। ঝড়ের সময় বাড়ি থেকে ভুলেও বেরবেন না। গৃহপালিত পশুকে ঝড়ের সময় বেঁধে রাখবেন না। অযথা আতঙ্কিত হয়ে মানসিক চাপ বাড়াবেন না।

কী করবেন না: আবহাওয়া দপ্তরের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে এই সময় মৎস্যজীবীরা সমুদ্রে যাবেন না। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিন।ঝড়ের সময় বাড়ি থেকে ভুলেও বেরবেন না। গৃহপালিত পশুকে ঝড়ের সময় বেঁধে রাখবেন না। অযথা আতঙ্কিত হয়ে মানসিক চাপ বাড়াবেন না।

প্রয়োজনে রাজ্য সরকার এবং বিদ্যুৎ দপ্তরের হেল্পলাইন নম্বরে যোগাযোগ করতে ভুলবেন না। ২৫ মে থেকে হেল্পলাইন নম্বর দু’টি চালু হবে। নম্বরগুলি হল: ৮৯০০৭৯৩৫০৩ এবং ৮৯০০৭৯৩৫০৪।

Back to top button