ইয়াসের পর বঙ্গোপসাগরে আবারো তৈরি হচ্ছে এক সুপার সাইক্লোন, আবহাওয়া দপ্তরের তরফে জারি সতর্ক বার্তা

নিজস্ব প্রতিবেদন: কয়েকদিনের তীব্র দাবদাহের অবসান ঘটিয়ে বর্ষা প্রবেশ করল বাংলায় । তবে ইয়াশের প্রভাব বাংলার ওপর থেকে কাটতে না কাটতেই আরেকটি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ধেয়ে আসছে আবার পশ্চিমবঙ্গের দিকে। নাম গুলাবো। এই গুলাবো নামটি পাকিস্তানের দেওয়া। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরের উপর অবস্থান করা নিম্নচাপের মধ্যে দিয়ে প্রবেশ করেছে বর্ষা। তবে কয়েক দিনের মধ্যেই প্রবল ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা। আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান, দুই মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া ও হাওড়ায় ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে।

বাংলায় বর্ষা ঢোকার সাথে সাথেই আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, যে ইয়াশ সম্পূর্ণ পশ্চিমবাংলায় তান্ডব না চালালেও পরবর্তী যে ঘূর্ণিঝড়ের সৃষ্টি হয়েছে সেই ঘূর্ণিঝড় পশ্চিমবাংলার উপরই তান্ডব চালাবে। ইয়াসের পথ ধরেই এই গুলাবো এগোবে বলেই মনে করা হচ্ছে। তবে এই ঘূর্ণিঝড়ের গতিপ্রকৃতি ২৪ ঘন্টার মধ্যেই কি জানতে পারা যাবে। যদি এই ঘূর্ণিঝড়টির অভিমুখ উড়িষ্যা রাজ্যে হয় তাহলে এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে পশ্চিমবাংলায় ভারী বৃষ্টি হবার সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, আজ দিনের বেলা সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩১°C এবং সর্বনিম্ন ছিল ২৬° C। বাতাসে আপেক্ষিক আদ্রতার পরিমাণ ছিল ৯১%। রাতের দিকে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।দক্ষিণবঙ্গ ও উত্তরবঙ্গের আবহাওয়া- বঙ্গে বর্ষা প্রবেশ করেছে তাই উত্তর এবং দক্ষিণ বঙ্গের এলাকাগুলিতে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গে আগামীকালের তাপমাত্রা থাকবে ৩১°C সর্বনিম্ন ২৬° C। সকাল এবং রাত্রে দিকে কয়েকবার বজ্রবিদ্যুৎ সহ ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে, উল্লেখ্য, ২০২১ সালে গোটা দেশ ইতিমধ্যেই ২ টি পর পর সাইক্লোন দেখতে চলেছে। চলতি বছরে দেশের দুই প্রান্তে ১০ দিনের মাথায় দুটি সাইক্লোন সংগঠিত হয়। এছাড়া পর পর কয়েকটি টর্নেডাের তন্ডবও দেখা গেছে। এবার শােনা যাচ্ছে নতুন এই সাইক্লোন ওড়িশার বুকে আছড়ে পড়তে পারে। এই নতুন সাইক্লোন কতটা ভয়াবহ হতে পারে,তার সম্পর্কে কিছু এখনও জানা যায়নি।

Back to top button