CBI সেজে ১৫ লক্ষ টাকা জালিয়াতি, অভিযোগ ‘রিপাবলিক বাংলা’র সাংবাদিকের বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিবেদনআবারো হলো একটা স্ক্যাম। সিবিআইয়ের ভুয়ো পরিচয় দিয়ে ব্যবসায়ীর থেকে তোলা আদায়ের অভিযোগ উঠলো রিপাবলিক বাংলার রিপোর্টারের বিরুদ্ধে। পুলিশের জালে ‘রিপাবলিক বাংলা’র রিপোর্টার। এই বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতে না আসতেই ওই সাংবাদিককে সাসপেন্ড করা হয় বলে জানা গেছে। রিপাবলিক বাংলার টুইটার থেকে টুইট করে জানান তিনি স্থায়ী কর্মী ছিলেন না, অস্থায়ী কর্মী ছিলেন।

এই ঘটনার সূত্রপাত মঙ্গলবার। জানা গিয়েছে, অজিত রায় নামে এক ব্যবসায়ীর বাড়িতে হানা দেন অভিযুক্ত সাংবাদিক অভিষেক সেনগুপ্তের দুই সাগরেদ স্বরূপ রায় ও প্রতীক সরকার। সিবিআই দপ্তরে হাজিরা দেওয়ার নাম করে জোর পূর্বক নিজাম প্যালেসে নিয়ে যাওয়া হয়। দীর্ঘক্ষণ সিবিআই দপ্তরের নিচে বসিয়ে রাখা হয় ওই ব্যবসায়ীকে।

কেন্দ্রীয় তদন্তকারী আধিকারিক সেজে অজিত রায়ের সঙ্গে দেখা করেন অভিষেক সেনগুপ্ত। ঝামেলা মীমাংসা করার জন্য ১ কোটি টাকা দাবি করেন বলেও অভিযোগ। অবশেষে ১৫ লক্ষ টাকা দিতে রাজি হন ওই ব্যবসায়ী। টাকা দেওয়ার পর সন্দেহ হয় অজিতবাবুর। এরপরই গোটা বিষয়টি কসবা থানায় জানান তিনি।

পুলিশ এই অভিযোগের খোঁজ পাওয়া সাথে সাথেই তদন্ত শুরু করে, তদন্তে নেমে স্বরূপ ও প্রতীক কে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সাংবাদিক অভিষেক সেনগুপ্তকে আটক করেছে লালবাজার পুলিশ। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই ‘রিপাবলিক টিভি’র তরফে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হয়েছে, ওই সাংবাদিক স্থায়ী কর্মী ছিলেন না। তার বিরুদ্ধে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, ঠিক কত টাকা লুঠ করেছে ওই চক্র? কতদিন ধরে এই চক্র চালানো হচ্ছে তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

Back to top button